logo

মঙ্গলবার ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ - ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ - ২৪শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে ’ ১১ জন দালালকে গারদে ভরলেন পুলিশ
১০ জুন, ২০২১

নিজেস্ব প্রতিবেদক :: সোহেল নামে এক ছাত্রের অভিযোগের প্রেক্ষিতে চট্টগ্রাম পাসপোর্ট অফিস থেকে ১১ দালালকে গ্রেপ্তার করেছে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ।

বুধবার (৯ জুন) দুপুরে তাদের আটক করলে ও তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে সন্ধ্যায়।

দালালদের সাথে সাথে ঘটনাস্থলে গিয়ে কিভাবে পুলিশ পাকড়াও করে থানায় নিয়ে এসে ভরলেন, তা নিয়ে পাসপোর্ট অফিসে সারাদিনই চলেছে কানাঘুষা। অনেকে বলেছেন, এটি একটি সাজানো নাটক। অর্থ লেনদেনে বনিবনা না হওয়ায় তারা এ ঘটনাটি সাজিয়েছেন।

গ্রেপ্তার ১১ জন হলেন- সাইদুল হক (৪১), জাকির হোসেন রাজু (৫০), মো. সাইফুল ইসলাম (৫৮), আমিনুল ইসলাম (৫৬), রফিক আহম্মদ (৪৮), মো. জহির উদ্দীন (৪৮), মোহাম্মদ মিয়া জুনায়েদে (৩৬), মো. মুজিবুল হক সোহেল (৪০), আহম্মদ হোসেন (৪৭), মো. জামাল উদ্দীন (৪১), হাজী মো. শফি (৭০)।

কিন্তু ওসির এ বক্তব্যর সঙ্গে বাস্তব চিত্রের মিল খুঁজে পাওয়া যায় না। কারণ পাঁচলাইশ পাসপোর্ট অফিসে দালালরা সবসময় গা ঢাকা দিয়ে থাকেন। তাদের দেখে বোঝার উপায় থাকে না তারা দালাল। দালালরা পাসপোর্ট অফিসের আশেপাশে বিভিন্ন ভবনে অফিস বানিয়ে কার্যক্রম চালায়। যাদের খবর শুধু পুলিশেরই জানা আছে বলে জানে।

প্রতিবেদকে খোজ নিয়ে জানা যায় দালালদের সাথে অর্থ লেনদেনের বনিবনা না হওয়ায় এ গ্রেপ্তারের নাটকটি সাজানো হয়েছে।

ঘটনাস্থলে গিয়েই ১১ দালালকে কিভাবে ধরা সম্ভব এ প্রশ্নের জবাবে ওসি জাহিদুল কবির বলেন, আমরা কোথাও বলিনি যে, আমরা দালালকে অফিসের ভেতর থেকে ধরেছি। সোহেলকে ছাত্র বললেও তার পূর্ণাঙ্গ পরিচয় জানাতে পারেনি ওসি জাহিদুল কবির।

ওসি আরও বলেন, দুপুরে দালালদের আটক করে আনার পর সন্ধ্যায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। আর ভুক্তভোগী সোহেল থানায় মামলা দায়ের করেছে বলেও জানান ওসি জাহিদুল কবির।

আরো খবর

আজকের সংবাদের প্রচারিত কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by SaraBpo