logo

মঙ্গলবার ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ - ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ - ২১শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

শিরোনাম

সরকারী দপ্তরে সেবার মান উন্নয়ন শীর্ষক সভা চট্টগ্রামে পাসপোর্ট অফিসে গণশুনানি
২ জুলাই, ২০১৯

নিজেস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রামঃঃ সাধারণ মানুষ পাসপোর্ট বানাতে গিয়ে হয়রানির শিকার হন এমন অভিযোগ থেকে পাসপোর্ট অফিসে গণশুনানি করতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে অনুরোধ জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন প্রতিরোধ কমিটির নেতারা। গতকাল সোমবার (০১ জুলাই) বিকেলে মনসুরাবাদ বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসে এক মতবিনিময় সভায় এ অনুরোধ জানান চট্টগ্রাম মহানগর দুর্নীতি দমন প্রতিরোধ কমিটির নেতারা।
সরকারি দফতরে সেবার মান উন্নয়নে দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-১ এর সহযোগিতায় এবং বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস এবং আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস পাঁচলাইশ এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।
মতবিনিময় সভায় পাসপোর্ট সেবাকে জনগণের কাছে আরও সহজ করতে বিভিন্ন পরামর্শ দেন অংশগ্রহণকারীরা।পাসপোর্ট তৈরির পুলিশ ভেরিফিকশন প্রক্রিয়ায় মানুষ হয়রানির শিকার হন বলে স্বীকার করেন পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তারা। তবে তারা দাবি করেছেন পাসপোর্ট অফিসে কোনো ধরনের হয়রানি বা অনিয়ম করা হয় না।মতবিনিময় সভায় উপস্থিত চট্টগ্রাম মহানগর দুর্নীতি দমন প্রতিরোধ কমিটির সদস্য আবিদা সুলতানা বলেন, আমরা মতবিনিময় করছি ঠিক আছে। তবে সাধারণ মানুষ পাসপোর্ট তৈরি করতে গিয়ে কোথায়-কীভাবে হয়রানির শিকার হন তা জানতে গণশুনানি করা দরকার। এতে সঠিক চিত্র উঠে আসে এবং সেই সমস্যা সমাধানে কাজ করা যায়।আবিদা সুলতানার বক্তব্যকে সমর্থন জানান চট্টগ্রাম মহানগর দুর্নীতি দমন প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম কমু।
বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের উপ-পরিচালক আবু নোমান মো. জাকির হোসেন পাসপোর্ট সেবা নিয়ে গণশুনানি করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান।তবে পাসপোর্ট অফিসে জনবল সংকটের কারনে জনগণকে কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে হিমশিম খেতে হয় বলে জানান আবু নোমান মো. জাকির হোসেন।প্রবাসী, বয়স্ক ব্যক্তিরা পাসপোর্ট করতে গিয়ে যাতে হয়রানির শিকার না হন সেজন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে অনুরোধ জানান দুর্নীতি দমন প্রতিরোধ কমিটির নেতারা।মতবিনিময় সভার বিশেষ অতিথি দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-১ এর উপ-পরিচালক মোহাম্মদ লুৎফুল কবির চন্দন বলেন, আমাদের সেবা দেওয়ার মানসিকতা তৈরি করতে হবে। সরকার চায় সবক্ষেত্রে দুর্নীতি শূন্য হারে নেমে আসুক। সাধারণ মানুষের সঙ্গে ভালো আচরণ করতে হবে।পাসপোর্ট অফিসের ভেতরে দালালরা প্রবেশ করতে না পারলেও আশেপাশে ঘোরাঘুরি করে মানুষকে ফাঁদে ফেলে টাকা হাতিয়ে নেয় বলে মন্তব্য করেন মোহাম্মদ লুৎফুল কবির চন্দন।সাধারণ জনগণকে দালালদের কাছে না গিয়ে প্রয়োজনে পাসপোর্ট অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সহযোগিতা নিতেও অনুরোধ জানান তিনি।প্রধান অতিথি দুদক বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মো. আবদুল করিম বলেন, আমাদের সীমাবদ্ধতা থাকবে। সীমাবদ্ধতার মধ্যেই সাধারণ জনগণকে সেবা দিয়ে যেতে হবে। এর জন্য মানসিকতা তৈরি করতে হবে সবার।আবু নোমান মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে ও আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস পাঁচলাইশের উপ-পরিচালক মো. আল আমিন মৃধার সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন দুদকের সহকারী পরিচালক জাফর আহমেদ, দুর্নীতি দমন প্রতিরোধ কমিটির সদস্য শাওন পান্থ প্রম।

আরো খবর

আজকের সংবাদের প্রচারিত কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by GrameenFox