logo

বুধবার ৫ই আগস্ট, ২০২০ - ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ - ১৪ই জিলহজ্জ, ১৪৪১

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ উপেক্ষা করে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) সুপ্তশ্রী সাহা অনুপস্থিত।
৩ মে, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সুপার সাইক্লোনে রুপ নেয়া ঘূর্ণিঝড় ” ফণী ” বাংলাদেশ ছেড়ে চলে না যাওয়া পর্যন্ত সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারী,জেলা ত্রান কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাগনদের কর্মস্থল ছেড়ে না যাওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।পাহাড়ি ও উপকুলবর্তী এলাকায় ঝুঁকির মধ্যে বসবাসকারীদের নিরাপদস্থানে নিয়ে এসে আশ্রয় দেয়ার ও ঘোষনা দেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী । অথচ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ উপেক্ষা করে চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) সুপ্তশ্রী সাহা গত ২ মে ২০১৯ ইং বৃহস্পতিবার রাত থেকে আজ ৩ মে ২০১৯ ইং শুক্রবার দুপুর দেড়টা পর্যন্ত কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন। চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের পদস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র ক্ষয়-ক্ষতি মোকাবেলা, মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে রাখতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।সর্বদা প্রস্তুত রয়েছেন চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো: দেলোয়ার হোসেনসহ জেলা প্রশাসনের পদস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। পাশাপাশি খাবার সামগ্রী,ডাক্তারসহ ওষুধ সামগ্রী মজুদ রাখা হয়েছে।আর বোয়ালখালীর পিআইও সুপ্তশ্রী সাহা চট্টগ্রাম শহরের নন্দনকাননস্থ বাসায় ঘুমাচ্ছেন।চট্টগ্রামে অব্যাহত রয়েছে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত। তিনি(সুপ্তশ্রী সাহা) অফিস সহকারীদের বলে রেখেছেন “আমার ব্যাপারে কেউ ফোন করলে বলবেন,আমি বোয়ালখালী উপজেলা সদরের বাসায় আছি “।এ বিষয়টি অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার(উন্নয়ন)জনাব মো: নুরুল আলম নিজামী,চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক জনাব মো: দেলোয়ার হোসেন, জেলা ত্রান কর্মকর্তা জনাব আবুল কালাম আজাদ ও বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ভারপ্রাপ্ত)জনাব একরামুল সিদ্দিক মহোদয়কে জানানো হয়েছে।তাঁরা বিষয়টি খতিয়ে দেখে সত্যতা পেয়েছেন বলে জানান।উল্লেখ্য যে-সুপ্তশ্রী সাহা গত ২৮ নভেম্বর ২০১৮ ইং তারিখে বোয়ালখালী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন।এর আগে তিনি ব্রাহ্মনবাড়ীয়ার আশুগঞ্জ উপজেলা, রাঙ্গামাটির রাজস্থলী উপজেলা ও কাপ্তাই উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ছিলেন।চট্টগ্রাম জেলা ত্রান কর্মকর্তার কার্যালয়ে ও চাকুরী করেন সুপ্তশ্রী সাহা।বোয়ালখালীতে তিনি যোগদানের পর সেখানে সরকারী বাসা থাকা সত্বেও শহরের বাসা থেকে যাওয়া-আসা করে সপ্তাহে মাত্র ৩/৪দিন অফিস করেন বলে প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ।অফিসের হাজিরা খাতায় ও স্বাক্ষর করেন না,যা প্রমান রয়েছে।অফিস কলিগদের সাথে সবসময় চিৎকার করে উচ্চস্বরে কথা বলেন এই কর্মকর্তা।এছাড়া প্রকল্প থেকে কমিশন না পেলে প্রকল্পের সভাপতি/সম্পাদকের সাথে দুর্ব্যবহার ও করেন বলে অভিযোগ রয়েছে পিআইও সুপ্তশ্রীর বিরুদ্ধে।তিনি বোয়ালখালীর পাশাপাশি পার্শ্ববর্তী কর্ণফুলী/পটিয়া উপজেলা প্রক্ল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব নিতে সচিবালয়/মন্ত্রনালয়ে তদবীর চালিয়ে যাচ্ছেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

আরো খবর

আজকের সংবাদের প্রচারিত কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by GrameenFox

Optimized with PageSpeed Ninja