logo

সোমবার ২৬শে আগস্ট, ২০১৯ - ১১ই ভাদ্র, ১৪২৬ - ২৪শে জিলহজ্জ, ১৪৪০

শিরোনাম

জামায়াতের ২৮ নারী কর্মীকে রিমান্ডে চায় পুলিশ
৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭

 

[box type=”note” align=”alignright” ]

রাজধানীর রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে আটক জামায়াতের ২৮ নারী কর্মীর বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছে পুলিশ। তাদেরকে রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করবে বাহিনীটি। বৃহস্পতিবার মোহাম্মদপুরের একটি বাড়ি থেকে আটক করে তাদেরকে থানায় নেয়া হয়। পরদিন সকালে সেখানে সংবাদ সম্মেলন করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার। তিনি বলেন, ‘সরকারবিরোধী নাশকতার পরিকল্পনা করতেই তারা সেখানে জড়ো হয়েছিল।’ বিপ্লব কুমার সরকার জানায়, থানায় জিজ্ঞাসাবাদে আটকদের মধ্যে অনেকেই তাদের পরিচয় গোপন করার চেষ্টা করেছেন। তবে বেশিরভাগের পরিচয়ই জানা গেছে। এদের কেউ কেউ মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসি হওয়া জামায়াত নেতাদের স্বজন। পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা তাদেরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পেরেছি তারা ধর্ম ও তাবলীগের কথা বলে ধর্মের আড়ালে নাশকতা ছড়ানোর পরিকল্পনায় ছিল। আটকদের অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ড আবেদন চাওয়া হবে।’ বিপ্লব কুমার বলেন, ‘আমাদের কাছে আগে থেকেই তথ্য ছিল মোহাম্মদপুর এলাকায় এ ধরনের বৈঠক মাঝে মাঝে হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) আমরা বাসাটি নিশ্চিত হওয়ার পর সেখানে অভিযান চালাই। অনেকক্ষণ চেষ্টা করলেও তারা প্রথমে দরজা খুলতে চায়নি। এক পর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করলে তারা দরজা খুলে দেয়। পরে তাদের ২৮ জনকে আটক করে মোহাম্মদপুর থানায় নিয়ে আসা হয়।’ তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার বলেন, ‘আটকদের মধ্যে জামায়াতের রুকন পর্যায়ের নেত্রীও রয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘তাদের কাছ থেকে উগ্রবাদ ছড়ানোর অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বই, লিফলেটসহ বিভিন্ন কাগজপত্র পাওয়া গেছে। তারা শুধুমাত্র ঢাকা নয়, বিভিন্ন জেলা থেকে এসেছে বলে জানা গেছে। তারা অনেকেই শিক্ষিত। কেউ কেউ কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। তবে অনেকেই তাদের প্রকৃত পরিচয় দিচ্ছে না।’ বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে মোহাম্মদপুর তাজমহল রোডের ১১/৭ বাড়ির দোতলা থেকে গোপন বৈঠককালে জামায়াতের ২৮ নারী সদস্যকে আটক করে পুলিশ।[/box]

সর্বশেষ খবর

আরো খবর

আজকের সংবাদের প্রচারিত কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by GrameenFox